ঈদগাঁওতে চোরাই গরু উদ্ধার, আটক ২

ঈদগাঁওতে চোরাই গরু উদ্ধার, আটক ২।
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

কক্সবাজার প্রতিনিধি: কক্সবাজারের ঈদগাঁও উপজেলায় গরু জবাইয়ের কারখানা থেকে চোরাই গরু উদ্ধার ও ২ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

গত ২০ অক্টোবর রাতে এ গরু চুরির ঘটনা ঘটে।  তবে পর দিন সকালে চোরসহ গরু উদ্ধার করা হয়।

এ ঘটনায় এলাকায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে। আপোষ মিমাংসা, ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে উঠেছে একটি চক্র। স্থানীয়রা গরু চুরির সাথে জড়িতদের আইনের আওতায় আনার দাবি জানিয়েছে।

জানা গেছে,  উপজেলার ঈদগাঁও ইউনিয়নের পালপাড়ার মৃত অরবিন্দ পালের ছেলে কাজল পালের গোয়াল ঘর থেকে গত ২০ অক্টোবর রাতে একটি গাভী চুরি হয়।

পরদিন সকালে ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হালিমের নির্দেশে এএসআই গিয়াস উদ্দিনের নেতৃত্বে পুলিশ দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ঐ এলাকায় অভিযান চালায়।

এসময় ইউনিয়নের দরগাহ রোড়ের ব্রীজ সংলগ্ন  নুর মঞ্জিল থেকে চোরাই গরুটি উদ্ধার করে এবং জড়িত সন্দেহে ২ জনকে আটক করে পুলিশ। তারা হল নুর মঞ্জিলের মালিক ছৈয়দ আহমদ ও দরগাহ পাড়ার মতলবের ছেলে নুর হোসেন।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, নুর মঞ্জিলে ডেইরী ফার্মের সাইন বোর্ড থাকলেও ভেতরে রয়েছে গরু জবাইয়ের কারখানা।

পানির পাইপ লাইন দেয়া আছে ব্রীজের নীচ দিয়ে খালে।  তারা মনে করেন চোরাইকৃত গরু সেখানে জবাই করে বিভিন্ন স্থানে সরবরাহ দেয়া হচ্ছে। স্থানীয়  একটি চক্র এ অপকর্মের সাথে জড়িত। ঐ  চক্র ঘটনা ধামাচাপা দিতে মরিয়া হয়ে ওঠেছে।

গরুর মালিক কাজল পাল জানান, গরু উদ্ধার ও চোর আটকের পর বিষয়টি আপোষ মিমাংসার জন্য চাপ সৃষ্টি করতে থাকে স্থানীয় একটি মহল। যার কারনে তিনি অসহায় হয়ে পড়েন। তারপরও জড়িতদের আইনের আওতায় আনতে  প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করে  থানায় এজাহার দায়ের করেছি।

স্থানীয়দের দাবী চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন এলাকা থেকে গরু চুরি করে আসছে। ঐ গরু জবাইয়ের কারখানার সুত্র ধরে তদন্ত করলে প্রকৃত অপরাধীরা বেরিয়ে আসবে।

ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ আব্দুল হালিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মামলার প্রক্রিয়া চলছে এবং অপরাধ দমনে কার্যকর ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।