ঈদগাঁওতে গাছে বেঁধে শিশুকে পিটিয়ে হত্যা, ঘাতক গ্রেফতার

কক্সবাজারের ঈদগাঁও উপজেলার পোকখালীর পূর্ব ইছাখালী এলাকায় মো. সাজ্জাদ (১৩) নামে এক শিশুকে সুপারী গাছের সাথে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সেলিম উদ্দীন, ঈদগাঁও প্রতিনিধি: কক্সবাজারের ঈদগাঁও উপজেলার পোকখালীর পূর্ব ইছাখালী এলাকায় মো. সাজ্জাদ (১৩) নামে এক শিশুকে সুপারী গাছের সাথে বেঁধে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। এ ঘটনায় জড়িত প্রধান ঘাতক মোঃ আলমকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ।

২৫ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত সাড়ে ১২ টার সময় ঈদগাঁও থানার ওসি মো. আবদুল হালিমের নেতৃত্বে পুলিশ দল তাকে গ্রেফতার করে।

গত ২৪ সেপ্টেম্বর বিকাল সাড়ে ৫ টায় তাকে সুপারি গাছের সাথে রশি দিয়ে বেঁধে জনসম্মুখে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে দুবৃর্ত্তরা।

পরে ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬ টায় ঈদগাঁও মেডিকেলে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নিহত সাজ্জাদ ঈদগাঁও উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের উত্তর সাত ঝুলাকাটা গ্রামের নুরুল হুদার ছেলে।

নিহতের পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ সেপ্টেম্বর বিকাল অনুমান সাড়ে ৩ টার সময় সাজ্জাদ (১৩) কে একদল দুবৃর্ত্ত স্থানীয় ইশফাতের গ্রাম্য চা দোকানে লোকজনের সামনে টানা হেছড়া করে পাশ্ববর্তী পোকখালী ইউনিয়নের পূর্ব ইছাখালী গ্রামে নিয়ে যায়।

সেখানে সুপারি গাছের সাথে রশি দিয়া বেঁধে রাখে। বিকাল সাড়ে ৫ টার সময় মো. আলম (৩০) এর নেতৃতে দুবৃর্ত্তরা শিশু সাজ্জাদকে সুপারি গাছের সাথে পিছমুড়া করে বাঁধা অবস্থায় বেধড়ক পিটায়। এতেগুরুতর আহত সাজ্জাদ মারা গেছে ভেবে তাকে ফেলে পালিয়ে যায় দুবৃত্তরা।

নিহতের পিতা নুরুল হুদা বলেন, ঘটনার খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় আমার ছেলে সাজ্জাদকে নিথর অবস্থায় উদ্ধার করে বাড়ীতে এনে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা করা হয়।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে আমার ছেলের অবস্থা আশংকা জনক হওয়ায় গত ২৫ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬ টার সময় সাজ্জাদকে ঈদগাঁও মেডিকেল নিয়া গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ঈদগাঁও থানা পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেন।

এ ঘটনায় নিহত সাজ্জাদের বাবা বাদী হয়ে ৪ জনের বিরুদ্ধে ঈদগাঁও থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার আসামীরা হলেন, আব্দুস সালাম প্রঃ টুইল্যার ছেলে মোঃ আলম (৩০), মৃত ছাবের আহমদের ছেলে আব্দুস সালাম প্রঃ টুইল্যা (৫৫), আব্দুস সালামের স্ত্রী মিনুয়ারা বেগম (৪০) ও আব্দুস সালাম প্রঃ টুইল্যার ছেলে নুরুল আজিম প্রঃ কালু (১৫)।

ঈদগাঁও থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি মো. আবদুল হালিম বলেন, আমিসহ এসআই কাজী গোলাম মহিউদ্দিন, এসআই মোঃ মিরাজ হোসেন, মোঃ গিয়াস উদ্দিন সঙ্গীয় ফোর্স সহ ২৫ সেপ্টেম্বর দিনগত রাত সাড়ে ১২ টায় ঈদগাঁও থানা এলাকার পূর্ব ইছাখালী এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোঃ আলম গ্রেফতার করা হয়।

ঘটনায় জড়িত অন্যান্য আসামিদেরও গ্রেফতার চেষ্টা চলছে।