ইউএস টপচার্টে বাংলাদেশি সিনেমা ‘হাওয়া’

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: ইউএস টপচার্টে জায়গা করে নিয়েছে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র ‘হাওয়া’। বাংলাদেশি চলচ্চিত্রের আন্তর্জাতিক পরিবেশক স্বপ্ন স্কেয়ারক্রোর প্রেসিডেন্ট অলিউল্লাহ সজীব বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

আজ বুধবার দুপুরে তিনি জানান, এটিই বাংলাদেশের প্রথম কোনো সিনেমা, যেটি যুক্তরাষ্ট্রের টপচার্টে প্রবেশ করেছে।

বাংলাদেশের সীমানা পেরিয়ে উত্তর আমেরিকার বিভিন্ন সিনেমা হলে ২ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেয়েছে চলচ্চিত্রটি।

‘স্বপ্ন স্কেয়ারক্রো’র পরিবেশনায় সান মিউজিক অ্যান্ড মোশন পিকচার্স লিমিটেড প্রযোজিত এবং ফেইসকার্ড প্রডাকশন নির্মিত এ সিনেমাটি প্রথম সপ্তাহে কানাডায় ১৩টি এবং আমেরিকায় ৭৩টি মোট ৮৬ হলে মুক্তি পায়।

অলিউল্লাহ সজীব বলেন, ‘কানাডা ও যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি সিনেমায় দর্শকদের আগ্রহে বক্স অফিসে একটি ঝড়ের সংকেত দেখেছিলাম আমরা। সেই ঝড় যে এত বড় হবে তা ছিল আমাদের কল্পনারও বাইরে। বাংলাদেশের প্রথম সিনেমা হিসেবে হাওয়া ইউএস টপচার্টে জায়গা করে নিয়েছে। টপচার্টের ২৭ নম্বরে অবস্থান করছে সিনেমাটি। ’

অলিউল্লাহ সজীব  আরো বলেন, “আপনি যদি ‘অবিশ্বাস্য’ কথাটার একটা বাস্তব রূপ দেখতে চান, নির্দ্বিধায় এটি সেটি। এখন আসেন, কত আয় করে ‘হাওয়া’ এ অভূতপূর্ব ঘটনার জন্ম দিল তা দেখি, প্রথম চার দিনে (‘লেবার ডে’ থাকার কারণে এক দিন উইকেন্ড বেশি ছিল এবার), ‘হাওয়া’র গ্রস বক্স অফিস কালেকশন : ২১৩,৪৬১ ডলার (কানাডা গ্রস : ৮৬,৩১২ ডলার, আমেরিকা গ্রস : ১২৭,১৪৯ ডলার), এখন পর্যন্ত সিনেমাটি দেখেছেন ২৫,৪৪৪ জন (কানাডায় ৯,৯৩০ জন, আমেরিকায় ১৫,৫১৪ জন)।

তিনি বলেন, বাংলাদেশি সিনেমা বিবেচনায়, “এ সংখ্যা যে কত বিশাল তা বুঝতে পারবেন যখন উত্তর আমেরিকার বক্স অফিসে এত দিন পর্যন্ত সর্বোচ্চ আয় করা বাংলাদেশি সিনেমা ‘দেবী’র আয়ের সঙ্গে এটিকে মেলাবেন। ২০১৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘দেবী’র লাইফটাইম গ্রস বক্স অফিস আয় ছিল : ১২৫,৪১৪ ডলার। ‘দেবী’র সম্পূর্ণ আয় ‘হাওয়া’ মাত্র তিন দিনেই অতিক্রম করে গেছে! (‘হাওয়া’র তিন দিনের আয় ১৫৯,৭৫২ ডলার। )”

এর আগে বাংলাদেশেও তুমুল ঝড় তোলে ‘হাওয়া’ চলচ্চিত্রটি।