আ’লীগের পদ হারালেন নুসরাত হত্যার আসামি রুহুল

রুহুল আমিন। ফাইল ছবি
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

ফেনীর সোনাগাজী আওয়ামী লীগের সভাপতির পদ স্থায়ীভাবে হারালেন নুসরাত হত্যার আসামি রুহুল আমিন।

নবগঠিত কমিটিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও আলোচিত নুসরাত হত্যা মামলার অন্যতম আসামি রুহুল আমিনকে স্থায়ীভাবে সরিয়ে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অধ্যাপক মো. মফিজুল হককে সভাপতি করা হয়েছে।

পুনরায় সাধারণ সম্পাদক করা হয়েছে সোনাগাজী পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট রফিকুল ইসলাম খোকনকে।

দলীয় ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ১৯৯৭ সালে উপজেলা জাতীয় পার্টির সদস্য ছিলেন রুহুল আমিন। একই বছর উপজেলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন সাধারণ সম্পাদক ফয়েজুল কবিরের হাতে সোনাগাজী ফরিদ সুপার মার্কেটের সামনের এক সমাবেশে ফুল দিয়ে আওয়ামী লীগে যোগ দেন। ২০০১ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত তিনি সৌদি আরবে অবস্থান করেন।

এর পর থেকে আওয়ামী লীগে যোগ দেয়ার চেষ্টা করে ২০১৩ সালে সোনাগাজী আওয়ামী লীগের সদস্য হন। এরপর ২০১৬ সালে ফেনী-২ আসনের এমপি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম হাজারী এমপির আশীর্বাদ নিয়ে সোনাগাজী আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি নির্বাচিত হন। ২০১৮ সালে স্থায়ীভাবে সোনাগাজী আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি।

সোনাগাজী ইসলামিয়া ফাজিল মাদ্রাসার ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফি হত্যা মামলায় জড়িত থাকার অভিযোগে চলতি বছরের ১৯ এপ্রিল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিনকে গ্রেফতার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ৩০ মে রুহুল আমিনসহ ১৬ জনের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আদালতে চার্জশিট জমা দেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও পিবিআই পরিদর্শক মো. শাহ আলম।।

নাম ও পরিচয় প্রকাশ না করার শর্তে দলীয় শীর্ষ পর্যায়ের একাধিক নেতা বলেন, শুধু নুসরাত হত্যা মামলায় অভিযুক্ত হওয়ায় পদ হারাতে হয়েছে রুহুল আমিনকে।

বুধবার বিকালে সোনাগাজী মো. ছাবের সরকারি পাইলট উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সম্মেলনে প্রধান অতিথি ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর সাবেক প্রটোকল অফিসার ও ফেনী ইউনির্ভাসিটির ট্রাস্টি বোর্ডের চেয়ারম্যান আলাউদ্দিন আহমেদ চৌধুরী নাসিম, ফেনী-২ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন হাজারী, সহ-সভাপতি আক্রামুজ্জামান ও প্রিয়রঞ্জন দত্ত, দফতর সম্পাদক শহীদ খোন্দকার, সোনাগাজী উপজেলা চেয়ারম্যান কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা জহির উদ্দিন মাহমুদ লিপটন, ছাগলনাইয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, পরশুরাম উপজেলা চেয়ারম্যান কামাল উদ্দিন মজুমদার প্রমুখ।