আবরার হত্যা: ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের ডাক বুয়েট শিক্ষার্থীদের

CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

মঙ্গলবার দিনভর ক্ষোভ-বিক্ষোভে উত্তাল বুয়েটে ক্যাম্পাসে উপাচার্যের কথায় সন্তুষ্ট না হওয়ার পর আন্দোলনরতদের মুখপাত্র হিসেবে সন্ধ্যায় এই ঘোষণা দেন ২০১৫ ব্যাচের শিক্ষার্থী আবুল মনসুর।

তিনি বলেন, “যাদেরকে গ্রেপ্তার করা হয়নি, তাদেরকে দ্রুত গ্রেপ্তার করতে হবে। মামলার চার্জশিট না হওয়া পর্যন্ত বুয়েটের আসন্ন ভর্তি পরীক্ষাসহ সব ধরনের একাডেমিক এবং প্রশাসনিক কাজ স্থগিত থাকবে। পাশাপাশি আন্দোলনও চলবে।”

হত্যাকাণ্ডের দুদিন পর আন্দোলনরতদের দাবির মুখে তাদের সামনে হাজির হয়ে তোপের মুখে পড়েন উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলাম।

গত রোববার রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে ছাত্রলীগের একদল নেতা-কর্মীর নির্যাতনের শিকার হয়ে তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার মারা যান বলে অভিযোগ উঠেছে।

শেরে বাংলা হলের প্রাধ্যক্ষ জাফর ইকবাল খানের পদত্যাগের দাবি তুলে মনসুর বলেন, “প্রভোস্ট ঘটনার পরেও দায়িত্ব পালন করেনি; বরং ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করেছেন। এজন্য অবিলম্বে প্রভোস্টের পদত্যাগ দাবি করছি।”

আবরারের বাবা কুষ্টিয়াবাসী অবসরপ্রাপ্ত ব্র্যাককর্মী বরকতুল্লাহ মোট ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন। ওই মামলায় ১৩ জনকে ইতোমধ্যে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

আবরার হত্যামামলা ডিবিতে হস্তান্তর করা হয়েছে। দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিয়ে অতিসত্বর মামলার নিষ্পত্তি করতে অপরাধীদের সাজা কার্যকর করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন আন্দোলনকারীরা।

আবরারকে নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগ ওঠায় বুয়েট ছাত্রলীগের ১১ নেতাকর্মীকে সংগঠন থেকে বহিষ্কার করেছে সংগঠনটি।