আন্দোলনে আওয়ামী লীগ ভীত-সন্ত্রস্ত, তাই দমন-পীড়নে: বিএনপি

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: বিএনপির চলমান আন্দোলনে ভীত-সন্ত্রস্ত হয়ে আওয়ামী লীগ দমন-পীড়ন চালাচ্ছে বলে দাবি করেছে দলটি। আজ সোমবার বিএনপির নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

জ্বালানি তেল, দ্রব্যমূল্য ও পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধি এবং ভোলায় দুই নেতার নিহত হওয়ার ঘটনার প্রতিবাদে সারাদেশে ২২ আগস্ট থেকে বিক্ষোভ সমাবেশ ও মিছিলের কর্মসূচি চলছে বিএনপির।

বিএনপি মহাসচিব জানান, বিএনপির চলমান কর্মসূচি আগামী ১০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চলবে। এরপরই নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘এই কর্মসূচি জনগণের মধ্যে অভূতপূর্ব সাড়া জাগিয়েছে। কর্তৃত্ববাদী সরকারের দুঃশাসনে অতিষ্ঠ হয়ে এর প্রতিবাদ জানাতে বিএনপির ডাকে মানুষ রাস্তায় নেমে এসেছে।’

তিনি বলেন, ‘এতে ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে- আওয়ামী লীগের যে চরিত্র- সন্ত্রাসী, তা আরও একবার উদ্ভাসিত হয়েছে। আওয়ামী লীগের যে বডিকেমিস্ট্রি- তাতে সন্ত্রাস আছে। আওয়ামী লীগ দেউলিয়া হয়ে গেছে। তাই সন্ত্রাস ছাড়া তারা আর টিকে থাকতে পারছে না।’

বিরোধী দলের কর্মসূচিতে আর বাধা দেওয়া হবে না- প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এমন বক্তব্য তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব বলেন, তিনি বললেন এরকম। কাজ হচ্ছে এর উল্টো। এভাবে দেশের গণতন্ত্রকে ধ্বংস করা হচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

রোববার যশোর জেলায় বিএনপি’র কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিতের ওপর আওয়ামী লীগের কর্মীরা হামলা করেছেন উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তিনি অল্পের জন্য প্রাণে রক্ষা পেয়েছেন। এছাড়াও জেলা বিএনপি’র দলীয় কার্যালয় ভাংচুর করে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। জেলা বিএনপি’র নেতৃবৃন্দের বাড়িতে বাড়িতে হামলা চলছে।’

অন্যান্য জেলায়ও দলের নেতাকর্মীদের বাড়িতে বাড়িতে হামলা হয়েছে দাবি করে তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে বড় যে বিষয়, তারা (আওয়ামী লীগ) বাড়িতে বাড়িতে হামলা করছে। তারা এতটুকুও চিন্তা করছে না যে, এটা সারাদেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করবে।’

এছাড়াও চট্টগ্রাম, খুলনা, হবিগঞ্জ, ফেনী, টাঙ্গাইল, সাতক্ষীরা, ঠাকুরগাঁও, পটুয়াখালী, নরসিংদী, বরিশাল, ভোলা, কুষ্টিয়া নোয়াখালী, নাটোর, মুন্সীগঞ্জ, জামালপুর, লক্ষ্মীপুর, ব্রাহ্মণবাড়িয়া ইত্যাদি জেলায় বিএনপির বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সরকারি দলের হামলার বর্ণনা তুলে ধরেন দলটির মহাসচিব।

তিনি বলেন, ‘এ পর্যন্ত হাজার হাজার নেতাকর্মীর নামে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে। এতে মোট গ্রেপ্তার হয়েছেন ৬০ জনের অধিক নেতাকর্মী। হামলায় আহত হয়েছেন ৭৭৫ জনের বেশি।’

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আবদুস সালাম, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন আবদুস সালাম আজাদ, কেন্দ্রীয় নেতা মীর সরফত আলী সপু, আবুল কালাম আজাদ, আসাদুল করীম, শাহিন, তাইফুল ইসলাম টিপু, সাইফুল আলম নিরব, শ্রমিক দলের আনোয়ার হোসাইন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।