অর্থপাচার মামলায় পাপিয়া দম্পতির বিচার শুরু

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: অর্থ পাচারের মামলায় যুব মহিলা লীগ থেকে বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নুর পাপিয়াসহ পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত।

ঢাকার ৮ নম্বর বিশেষ জজ আদালতের বিচারক বদরুল আলম ভুঞা রোববার আসামিদের অব্যাহতির আবেদন নাকচ করে চার্জ গঠনের আদেশ দেন।

একইসঙ্গে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের তারিখ ধার্য করেছেন আদালত। এর মধ্যে দিয়ে আসামিদের বিরুদ্ধে আনুষ্ঠানিক বিচার শুরু হলো।

এই মামলার অপর চার আসামি হলো- পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী, সহযোগী সাব্বির খন্দকার, শেখ তায়িবা নুর ও জুবায়ের আলম।

জাল টাকা বহন ও টাকা পাচারের অভিযোগে ২০২০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি রাজধানী ঢাকার হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পাপিয়াসহ চারজনকে আটক করে র‌্যাব। আটকের সময় তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, ২ লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ জাল টাকা, ৩১০ ভারতীয় রুপি, ৪২০ শ্রীলঙ্কান মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ মার্কিন ডলার ও সাতটি মোবাইল ফোন জব্দ করা হয়।

এরপর পরদিন পাপিয়ার ইন্দিরা রোডের বাসায় অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ, ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেকবই, বেশকিছু বিদেশি মুদ্রা ও বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি এটিএম কার্ড জব্দ করা হয়।

এ ঘটনায় পাপিয়া ও তার স্বামীর বিরুদ্ধে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় মাদক ও অস্ত্র মামলা, গুলশান থানায় অর্থ পাচারের মামলা, বিমানবন্দর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা করা হয়। এছাড়া অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগে মামলা করে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২০২১ সালের ২৭ ডিসেম্বর অর্থ পাচারের মামলায় পাপিয়াসহ পাঁচজনকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করে সিআইডি।