অপো এফ২১ প্রো ফাইভজি: উদ্ভাবন ও নান্দনিক ডিজাইনের অপূর্ব সমন্বয়

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: অত্যাধুনিক প্রযুক্তি, আইকনিক ডিজাইন ও উদ্ভাবনী ভাবনা – এ তিনটি বিষয়কে প্রাধান্য দিয়েই শীর্ষস্থানীয় স্মার্ট ডিভাইস ব্র্যান্ড অপো প্রতিনিয়তই দেশের বাজারে নিয়ে আসছে নিত্য নতুন প্রযুক্তির স্মার্টফোন। ব্যবহারকারীদের ফোন ব্যবহারের অনন্য অভিজ্ঞতা দিতে প্রতিষ্ঠানটি এর এফ সিরিজের নতুন ডিভাইস এফ২১ প্রো ফাইভজি সংস্করণের ডিভাইসটি বাংলাদেশের বাজারে নিয়ে এসেছে। এফ২১ প্রো ফাইভজি ডিভাইসটি অপো’র নিজস্ব উৎপাদন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়েই তৈরি করা হয়েছে; যেখানে উদ্ভাবনী অপো গ্লো ও ডুয়াল অরবিট লাইটস ডিজাইন নিয়ে আসা হয়েছে। উদ্ভাবন সমৃদ্ধ এ ডিভাইসটি নিশ্চিতভাবেই নতুন ট্রেন্ডসেটার হিসেবে ব্যবহারকারীদের মন জয় করতে পারবে বলে প্রত্যাশা করা যাচ্ছে।

অপো এফ ২১ প্রো ফাইভজি ডিভাইসে অত্যাধুনিক সিএমএফ (রঙ, ম্যাটেরিয়ালস, ফিনিশ) টেকনিক ব্যবহার করা হয়েছে। রেইনবো স্পেকট্রাম ও কসমিক ব্ল্যাক – ব্যবহারকারীদের জন্য এ দু’টি রঙে ডিভাইসটি বাজারে নিয়ে আসা হয়েছে। রেইনবো স্পেকট্রাম রঙের ডিভাইসটি তৈরির প্রক্রিয়ায় ‘থ্রি-লেয়ার টেক্সচার ও টু-লেয়ার কোটিং’ ব্যবহার করা হয়েছে, যার ফলে ভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে ফোনটি রঙধনু রঙের আবহ তৈরি করবে। থ্রি-লেয়ার টেক্সচারে ‘ইনারমোস্ট স্কেটারিং’ গ্রেইন, এসজি গ্রেইনে ইন্টারলেয়ার ও গ্লসি-অ্যান্ড-ম্যাট গ্রেইন দিয়ে তৈরি উজ্জ্বল অপো গ্লো ডিজাইন ও ডিভাইসটির ক্যামেরা সেকশনেও রয়েছে গ্লসি লেয়ার। এ সব কিছুর সমন্বয়ে, অপো ডিভাইসটির পেছনের দিকে একটি উন্নত টেক্সচার তৈরি করেছে। লাল, হলুদ ও সবুজ রঙের সমন্বয়ে মাল্টি-কালার গ্রেডিয়েন্ট তৈরি হয়েছে; পাশাপাশি, ইন্ডিয়াম কোটিংয়ের একটি বেস লেয়ারের সঙ্গে রঙের পরিবর্তনের জন্য সহায়ক ভূমিকা রাখে যথাক্রমে সবুজ, বেগুনি ও গোলাপী রঙ। এর ফলে, এফ২১ প্রো ফাইভজি’র রেইনবো স্পেকট্রাম ছয়টি প্রধান রঙে উজ্জ্বল, মনোমুগ্ধকর ও ‘হাইলি-রিফ্লেক্টিভ’ আকারে আবির্ভূত হয়। গ্লসি ও ম্যাট টেক্সারের সমন্বিত বিষয়টি গ্রেডিয়েন্ট ফিনিশ এ আলো ছায়ার এক অপূর্ব মিশ্রণ তৈরি করে। অপো গ্লো ম্যাট ক্যামেরার অংশটুকুকে আরো বেশি দৃশ্যমান করে তুলেছে।

এফ২১ প্রো ফাইভজি ডিভাইসে আনা হয়েছে উদ্ভাবনী ক্যামেরা ডিজাইন! ডিভাইসটিতে রয়েছে সিমেট্রিক ক্যামেরা মডিউল, যা ডিভাইসটিকে দেখতে আরো আকর্ষণীয় করে তুলেছে। ক্যামেরার ডিজাইনে অপো এ ইন্ডাস্ট্রিতে প্রথমবারের মতো ‘গ্লস ও ম্যাট টেক্সচার স্প্লাইসিং’ ব্যবহার করেছে, যা অন্যান্য ফোনের প্রচলিত বেজ ম্যাটেরিয়াল থেকে ডিভাইসটিকে আলাদা করে ডিভাইসটিকে করে তুলেছে আরো আকর্ষণীয়। শীর্ষস্থানীয় ব্র্যান্ডের আরঅ্যান্ডডি দলের সদস্যরা ক্যামেরার প্রতিটি লেয়ারের মধ্যে যেনো কোন শনাক্তকরণ সীমা না থাকে তা নিশ্চিত করেছে। নিখুঁত ফিনিশ নিশ্চিত করার জন্য স্প্লাইসিং প্রক্রিয়ায় লেয়ারের মধ্যে কোন এয়ার বাবল গঠিত হয়নি। ক্যামেরার পাশে একটি ডুয়াল-রিং ফ্লোটিং নোটিফিকেশন লাইট সিস্টেমের জন্য এফ২১ প্রো ফাইভজিতে ডুয়াল অরবিট লাইট ফিচার আনা হয়েছে। ডুয়াল অরবিট লাইট চালু করলে একটি স্বর্গীয় আবহ তৈরি হবে, যা দেখতে রাতের আকাশ থেকে নেমে আসা দুটি স্বর্গীয় বলয়ের মতো হবে।

অপো আরও উদ্ভাবনী প্রযুক্তি নিয়ে এসেছে যার মধ্যে রয়েছে আরজিবি লাইট সমন্বিত একটি কাঠামো, রিফ্লেক্টিভ ও শেডিং ফয়েল সহ একটি প্রিজম লাইট ইউনিফর্ম প্লেট ও একটি লাইট-গাইড প্যানেল – এগুলো ডুয়াল অরবিট লাইটের মন্ত্রমুগ্ধকর আলো তৈরিতে কাজ করে।

ডুয়াল অরবিট লাইটের সংমিশ্রণটি মূল ক্যামেরা বেজেলের পুরুত্ব হ্রাস করার সাথে সাথে এই ফোনের ডিজাইনকে আরও সুন্দর করেছে। অপো এফ২১ প্রো ফাইভজি ‘ইনোভেশন ও ফ্যান্টাসি’ এর মিশেলের মাধ্যমে ব্যবহারকারীদের ব্যতিক্রমী অভিজ্ঞতা প্রদান করবে।

আইকনিক লুক ছাড়াও হাতে রেখে স্বাচ্ছ্যন্দে ব্যবহারের জন্য অপোর এ ফোনটি ব্যবহারকারীদের কাছে বেশ জনপ্রিয়তা লাভ করেছে; বিশেষ করে, এর পাতলা ও হালকা ডিজাইনের জন্য। এফ২১ প্রো ফাইভজি ডিভাইসে আল্ট্রা-স্লিম রেট্রো ডিজাইন ব্যবহার করা হয়েছে। দেখতে চমৎকার ও স্বাচ্ছন্দ্যে গ্রিপের জন্য ডিভাইসটিতে ট্রেন্ডি ২.৫ডি ফ্রন্ট ও ব্যাক রাইট-অ্যাঙ্গেল বেজেল ব্যবহার করা হয়েছে। কসমিক ব্ল্যাক মডেলের ডিভাইসটি প্রায় ৭.৪৯ মিমি পুরু, রেইনবো স্পেকট্রাম মডেলটি প্রায় ৭.৫৫ মিমি পুরু এবং ওজন মাত্র ১৭৩ গ্রাম।

কমপ্যাক্ট ডিজাইন ছাড়াও ডিভাইসটি ব্যবহারকারীদের জন্য পুরোপুরি নির্ভরযোগ্য। আঙুলের ছাপ ও দাগ-প্রতিরোধী হওয়ার কারণে ফোনটির মিড-ফ্রেমের অ্যালুমিনিয়াম অ্যালয় আগের প্রজন্মের ডিভাইসগুলোতে ব্যবহৃত ডিভাইসের তুলনায় ১৫ শতাংশ বেশি শক্তিশালী, যা অপো এফ২১ প্রো ফাইভজি ডিভাইসকে আরো উন্নত করে তুলেছে।

অপো’র উদ্ভাবনী ডিজাইন

অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ছাড়াও, অপো’র ফোনগুলো এর সৃজনশীলতা, চোখ ধাঁধানো ডিজাইন এর জন্য বেশ সুপরিচিত। এরই ধারাবাহিকতায় অপো এফ২১ প্রো ফাইভজি ডিভাইস ক্রিয়েটিভ এবং নজরকাড়া ডিজাইনে ট্রেন্ড সেট করে চলেছে। তবে, নান্দনিকতা, আকার, স্বাচ্ছন্দ্য ও স্থায়ীত্ব এই বৈশিষ্ট্যগুলোর কারণে অপো এফ২১ প্রো ফাইভজি ফোনটি ক্রেতাদের চাহিদা পূরণ করতে সক্ষম হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।