‘অধিকার’-এর নিবন্ধন বাতিল

ছবি: সংগৃহীত
CPLUSTV
CTG NEWS
CPLUSTV
শেয়ার করুন

সিপ্লাস ডেস্ক: বেসরকারি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা দাবি করা ‘অধিকার’-এর নিবন্ধন বাতিল করেছে প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের এনজিও বিষয়ক ব্যুরো।

রবিবার (৫ জুন) ব্যুরোর এক আদেশে সংস্থাটির নিবন্ধন নবায়ন আবেদন নিষ্পত্তি করা হয়। দীর্ঘদিন সুরাহার অপেক্ষায় থাকার পর অবশেষে স্বয়ংক্রিয়ভাবেই বাতিল হয় তাদের নিবন্ধন। এর আগে নির্বাচন পর্যবেক্ষক হিসেবে সংস্থাটির নিবন্ধন বাতিল করে নির্বাচন কমিশন।

এ বিষয়ে রোববার এনজিও ব্যুরোর জারি করা আদেশে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক অঙ্গনে দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় এমন কাজে নিয়োজিত হওয়াসহ বেশ কয়েকটি কারণে ‘অধিকার’-এর নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে। সেই কারণগুলো হচ্ছে নিবন্ধনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য এবং নতুন আইন অনুযায়ী আরোপিত বর্ধিত ফি ও ভ্যাট না দেওয়া, বৈদেশিক অনুদানে বাস্তবায়িত প্রকল্পের আটটি আর্থিক নিরীক্ষা প্রতিবেদনের (অডিট রিপোর্ট) ওপর আপত্তির কোনো জবাব বা ব্যাখ্যা না দেওয়া, অধিকার ডট ওআরজি (odhikar.org) নামের ওয়েবসাইটে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ইস্যু তৈরি এবং তিনটি প্রকল্পে আর্থিক লেনদেনে অসঙ্গতি বিষয়ে গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের বিষয়ে যথাযথ জবাব না দেওয়া।

অধিকার-এর নিবন্ধনের মেয়াদ ২০১৫ সালের ২৫ মার্চ শেষ হয়। নিবন্ধন নবায়নের আবেদন করলেও তা দীর্ঘদিন ঝুলে ছিল। পরে বিষয়টি নিষ্পত্তি চেয়ে উচ্চ আদালতে একটি আবেদন করে সংগঠনটি। এখন অধিকার-এর আবেদনটি নিষ্পত্তি হয়ে যাওয়ায় উচ্চ আদালতে আবেদনের বিষয়টিও নিষ্পত্তি হয়ে যাবে বলে জানান এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক কে এম তারিকুল ইসলাম।

এছাড়া নিবন্ধনের জন্য প্রয়োজনীয় তথ্য, নতুন আইন অনুযায়ী আরোপিত বর্ধিত ফি ও ভ্যাট না দেওয়া, বৈদেশিক অনুদানে বাস্তবায়িত প্রকল্পের আটটি আর্থিক নিরীক্ষা প্রতিবেদনের ওপর আপত্তির কোনও জবাব বা ব্যাখ্যা না দেওয়া এবং তিনটি প্রকল্পে আর্থিক লেনদেন অসঙ্গতি বিষয়ে গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের বিষয়ে যথাযথ জবাব না দেওয়াও অধিকার-এর নিবন্ধন নবায়নের আবেদন নামঞ্জুরের অন্যতম কারণ বলে জানা গেছে।

আবেদন নিষ্পত্তির আদেশে বলা হয়, ‘বৈদেশিক অনুদান (স্বেচ্চাসেবামূলক কার্যক্রম) রেগুলেশন আইন ২০১৬ এর ধারা ৪(৪) মোতাবেক সংস্থা কর্তৃক দাখিলকৃত নিবন্ধন নবায়নের আবেদনপত্রে অসঙ্গতি থাকা, বিভিন্ন সময় চাওয়া তথ্যাদির সঠিক জবাব বা ব্যাখ্যা ও কাগজপত্র দাখিল না করা এবং রাষ্ট্রের সুনাম ও ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করে এমন কাজে সম্পৃক্ত থাকার কারণে সংস্থার কার্যক্রম সন্তোষজনক না হওয়ায় ‘অধিকার’ নামীয় সংস্থা কর্তৃক দাখিলকৃত নিবন্ধন নবায়নের আবেদনটি বিবেচনা করার কোনও সুযোগ নেই। সঙ্গত কারণেই সংস্থাটির  নবায়নের আবেদনটি নামঞ্জুর করা হলো।’

এর আগে ২০১৮ সালের নভেম্বরে নির্বাচন পর্যবেক্ষক সংস্থা হিসেবে নির্বাচন কমিশনে (ইসি) নিবন্ধিত সংগঠন ‘অধিকার’-এর নিবন্ধন বাতিল করে। এনজিও বিষয়ক ব্যুরোতে নিবন্ধনের মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় এবং নির্বাচন পর্যবেক্ষণ নীতিমালা-২০১৭ এর ৬ এর ২ উপধারা অনুযায়ী সংস্থাটির নিবন্ধন বাতিল করে ইসি।